Sunday, September 12, 2021
বাড়িপরিবেশএই লেকে কি সত্যিই মৎসবৃষ্টি হয় ?

এই লেকে কি সত্যিই মৎসবৃষ্টি হয় ?

- Advertisement -

 

আমেরিকার Utah অঞ্চল রেকর্ড তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্যে খরায় ভুগলেও এখানকার মৌসুমী বৃষ্টিপাত থেমে নেই। উঁচু লেকগুলোতে হরহামেশাই আকাশ থেকে হচ্ছে মৎসবৃষ্টি

কিন্তু এই বৃষ্টি আকাশে ভাসা মেঘ থেকে না বরং মানবসৃষ্ট। Utah Wildlife Resources কর্তৃপক্ষ উঁচু পাহাড়ি লেকগুলোতে প্রতিবছরই মাছ মজুদ করে।এবছরও তার ব্যাতিক্রম নয়। আকাশপথে বিমানের সাহায্যে প্রায় ২০০ টি লেকে এমন মৎসবৃষ্টি করা হয়। যার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

সময়ের সাথে মৎস মজুদের পদ্ধতির আধুনিকত্ব

কর্তৃপক্ষ ১৯৫৬ সাল থেকে লেকগুলোতে মাছ মজুদ করছে। বিমান ব্যবহারের আগে মানুষ বা ঘোড়ার সাহায্যে দূরবর্তী অঞ্চলের লেকগুলোতে মাছ মজুদ করতো। তবে এই পদ্ধতিতে বেশিরভাগ মাছ শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতো না। যদিও বিমান দ্বারা মাছ মজুদ করার প্রক্রিয়াটি আপাতদৃষ্টিতে মাছের জন্যে কিছুটা অহিতকর মনে হয়। কিন্তু সত্যি বলতে, এই প্রক্রিয়ায় মাছ মজুদ বেশ নিরাপদ এবং মাছের টিকে থাকার পরিমাণও অনেক বেশি। 

Salmoninae উপ-গোত্রের Trout FishSalmoninae উপ-গোত্রের Trout Fish

 

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে  trout ও  এর কিছু হাইব্রিড প্রজাতির মাছ লেকগুলোতে মজুদ করা হয়। যার মধ্যে স্প্লেইক (Salvelinus fontinalis) ও আর্কটিক গ্রেলিং (Thymallus arcticus) উল্লেখযোগ্য। বিমান থেকে নিক্ষিপ্ত এই মাছগুলো ১ – ৩ ইঞ্চি ( ২.৫ – ৭.৬ সে.মি.)  আকারের হয় , যে কারণে নিক্ষেপের পর বাতাস মৃদুভাবে মাছগুলোকে লেকে ভাসিয়ে আনে –অনেকটা বাতাসে উড়া পাতার মতো। 

প্রতি ফ্লাইটে একটি বিমান প্রায় হাজার পাউন্ড ( ৫০০ কে.জি এর মতো ) পানির সাথে ৩৫ হাজারের মতো মাছ লেকে নিক্ষেপ করে। তাছাড়া মাছ নিক্ষেপের সময় বিমানগুলো পাহাড় আর গাছের মতো প্রাকৃতিক বাধা পেরিয়ে যতটা সম্ভব নিচু দিয়ে যায়।ফলস্বরূপ এক্ষেত্রে প্রায় ৯৫ শতাংশ মাছ বেঁচে থাকতে পারে।

প্রতিবছর খরার মৌসুমে মাছ মজুদ না করলে লেকগুলোতে মাছের পরিমাণ হ্রাস পাবে এবং একসময় তা মাছশুণ্য হয়ে পড়বে। অন্যান্য বন্যপ্রাণীর উপরেও এর বিরূপ প্রভাব পড়বে। মাছগুলো হ্যাচারিতে জন্মে এবং বেশিরভাগ মাছকে বন্ধ্যা হিসেবে জন্মানো হয় যেনো মাছের জনসংখ্যা বিস্ফোরণ ঘটে বন্যজীবনের উপর ওর কোনো প্রভাব না পড়ে।

তথ্যসূত্রঃ LifeScience,The Hustle,BBC,Science Insider

– হৃদয় বিশ্বাস আকাশ

বিজ্ঞান পত্রিকার ইউটিউব চ্যানেল চালু হয়েছে।
এই লিংকে ক্লিক করে ইউটিউব চ্যানেল হতে ভিডিও দেখুন।
- Advertisement -

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সম্পর্কিত খবর

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

Stay Connected

যুক্ত থাকুন

302,645ভক্তমত
776গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব

Must Read

সম্পর্কিত পোস্ট

- Advertisement -
- Advertisement -

সবসময়ের জনপ্রিয়

সবচেয়ে আলোচিত

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -