Wednesday, October 13, 2021
বাড়িইতিহাসক্রংক্রিটের জাহাজ বানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র!

ক্রংক্রিটের জাহাজ বানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র!

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় স্টিলের ঘাটতি থাকায় বানানো হয় এই জাহাজগুলো

- Advertisement -

উদ্ভট কোনো জলযানে চড়ে বসার অভিজ্ঞতা ক’জনের আছে? অভিজ্ঞতা থাকুক বা না থাকুক, ইচ্ছেটা কিন্তু সবসময় রয়েই যায়। কারণ মানুষ চিরকালই আবিষ্কার প্রবণ। সমুদ্র ভ্রমণ সবার কাছেই রোমাঞ্চকর। জাহাজে করে সমুদ্রে ঘুরে বেড়ানোর স্বপ্নটাকে লোমহর্ষক মনে হতে পারে অনেকের কাছেই। আর এই সমুদ্রযাত্রায় আজ পর্যন্ত যোগ করা সব জলযানের মধ্যে সবচেয়ে উদ্ভট হয়ত কংক্রিটের জাহাজ যার ভেতরে লোহা কিংবা স্টীলের পাত বসিয়ে আরও মজবুত করা হয়।

জাহাজ সাধারণ কাঠ বা স্টীল দিয়েই তৈরি। তবে স্টীল ব্যবহার যথেষ্ট ব্যয় বহুল। ১৮৪৮ সালে, প্রথম বিশ্বযুদ্ধের আগে জোসেফ লুইস ল্যামবোট কংক্রিটের একটি ছোট নৌকার নকশা করেন। এখান থেকেই মূলত কংক্রিটের জলযানের যাত্রা শুরু হয়। এই শতকের শেষের দিকে একজন ইতালিয়ান ইঞ্জিনিয়ার সফলভাবে একটি কংক্রিটের জাহাজ নির্মাণ করেন।

তবে নির্মাণ সফলভাবে হলেও ব্যবহারে কতটা সাফল্য আসবে তা সন্দেহজনক। আপনার কী মনে হয়? কংক্রিটের জাহাজ কি সমুদ্রযাত্রার জন্য শতভাগ উপযোগী? আসলে কংক্রিটের তৈরি জাহাজ ওজনে অত্যন্ত ভারী হয়ে যায়। সেখানে স্টীলের মত শক্ত বা মজবুত হওয়ার জন্য একটি অংশ প্রয়োজন হয় যা জাহাজের কাঠামো গড়তে সাহায্য করে। তাছাড়াও, অতিরিক্ত জ্বালানি ব্যবহার করে এই জাহাজ। যার ফলে অন্য ধাতুর তৈরি জাহাজের তুলনায় এর নির্মাণ কাজে খরচ বেশি। অন্যদিক ওজনে অত্যন্ত ভারী হওয়ায় নাবিকরাও এতে সঙ্কিত বোধ করে থাকেন। জাহাজের ভেতরের পুরু অংশটি অর্থাৎ hull যদি ছিদ্র হয়ে যায় কোনোভাবে তাহলে অতি দ্রুত জাহাজটি সাগরে তলিয়ে যাবে।

কংক্রিটের জাহাজ আটলান্টিস
কংক্রিটের জাহাজ আটলান্টিস

বিভিন্ন সমস্যা থাকা সত্ত্বেও কংক্রিটের জাহাজ তৈরির কাজ কিন্তু থেমে থাকেনি। পরবর্তীতে এর আরও কাজ বাড়ানো হয়েছে। এবং একইসাথে এর আকার আরও বড় করা হয়েছে। ১৯১৯ সালে SS-Selma নামক একটি তেল ট্যাংকার নির্মাণ করা যায় যা সেই সময়ে নির্মিত কংক্রিটের জাহাজগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড়। এর ধ্বংসাবশেষ এখনো টেক্সাস গাল্ফ কোস্টে এর গ্যাভেলস্টোনে রয়েছে যা হাউলস্টোন চ্যানেল থেকে দেখা যায়।

এবার আসা যাক বিশ্বযুদ্ধে এই কংক্রিটের জাহাজগুলোর কোনো অবদান ছিল কি না সে প্রসঙ্গে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে আমেরিকা যখন অংশ নিল, তখন প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন আমেরিকার নৌ বাহিনীর জন্য ২৪টি কংক্রিটের জাহাজ তৈরির আদেশ দেন। তবে আফসোসের বিষয় হলো এই ২৪ টি জাহাজের একটিও প্রথম বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন কাজে লাগানো যায়নি। কারণ ঐ সময়ে তার নির্মাণ কাজই শেষ হয়নি। এর মধ্যে মাত্র ১২ টি জাহাজের কাজ শেষ হয়েছিল যখন যুদ্ধ শেষ হয়। এই জাহাজগুলো পরবর্তীতে বিভিন্ন কোম্পানির কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল।

দুর্ভাগ্যজনকভাবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে তো কংক্রিটের জাহাজগুলোর কোনো অবদানই রইল না। কিন্তু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়  কি এগুলো কাজে লাগানো গিয়েছিল? হ্যা! দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন স্টিলের অত্যন্ত স্বল্পতা থাকায় আরও ২৪ টি কংক্রিটের জাহাজ নির্মাণের আদেশ দেওয়া হয় এবং সেই সময় প্রত্যেকটি জাহাজই তৈরি হয়ে গিয়েছিল। বিভিন্ন পণ্য পরিবহনে সেই সময় কংক্রিটের জাহাজগুলোর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। এর মধ্যে কয়েকটি মোবাইল ক্যান্টিন হিসেবেও ব্যবহৃত হয়েছিল এবং এর সাথে ইঞ্জিনও সংযুক্ত করা হয়েছিল।

বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয়ে যাওয়ার পর আবার স্টিল এবং অন্যান্য ধাতুসমূহ সহজেই পাওয়া যায়। যার ফলে কংক্রিট অপ্রয়োজনীয় হয়ে পড়ে৷ এ সময় কংক্রিটের জাহাজগুলো ফেলে রাখা হয় বিভিন্ন বন্দরে। ব্রিটিশ কলম্বিয়ার পাওয়েল নদীতে এ সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যেখানে ১০ টি কংক্রিটের জাহাজ রয়েছে। ভার্জিনিয়ার কিপটোপেকে সমুদ্র সৈকতে ৯টি কংক্রিটের জাহাজের সমাহার রয়েছে।

কংক্রিটের জাহাজ পালো অল্টো
কংক্রিটের জাহাজ পালো অল্টো

SS Palo Alto তেল ট্যাংকারটি বর্তমানে একটি বিনোদনমূলক পার্ক হিসেবে ব্যবহৃত হয় যা ক্যালিফোর্নিয়াতে আছে। এতে সুইমিং পুল এবং একটি ক্যাফেও আছে। দু বছর আগে এটির স্বত্বাধিকারী কোম্পানির কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এটি আবার অচল হয়ে পড়ে এবং পুনরায় ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়।

কংক্রিটের জাহাজ সত্যিই খুব অদ্ভুত একটি উদ্ভাবন। বিভিন্ন গঠনগত ত্রুটি এবং সমস্যার কারণে এই আবিষ্কার মানবসভ্যতায় উল্লেখযোগ্য অবদান হয়ত তেমন রাখতে পারেনি। তবুও মানুষের অন্যতম আবিষ্কারগুলো মধ্যে একটি হিসেবে এটা সর্বদাই স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আর তখনই আমাদের মনে আকর্ষণ জাগাবে এর ধ্বংসাবশেষগুলো।

-নাজনীন নাহার অনন্যা  

বিজ্ঞান পত্রিকার ইউটিউব চ্যানেল চালু হয়েছে।
এই লিংকে ক্লিক করে ইউটিউব চ্যানেল হতে ভিডিও দেখুন।
- Advertisement -

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সম্পর্কিত খবর

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

Stay Connected

যুক্ত থাকুন

302,187ভক্তমত
780গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব

Must Read

সম্পর্কিত পোস্ট

- Advertisement -
- Advertisement -

সবসময়ের জনপ্রিয়

সবচেয়ে আলোচিত

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -