অধিকাংশ মানুষ টাইপ 1 এবং টাইপ 2 ডায়বেটিসের সাথে পরিচিত। তবে সম্প্রতি সম্পূর্ন নতুন এক ধরনের ডায়বেটিসের সন্ধান পাওয়া গেছে যেটিকে আগে টাইপ 2 মনে করে চিকিৎসা দেওয়া হতো। এর নাম টাইপ 3c ডায়বেটিস।

যখন কোনো ব্যক্তির শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা নিজেই তার শরীরের অগ্নাশয়ের ইনসুলিন উৎপাদক কোষগুলোকে ধ্বংস করতে থাকে তখন টাইপ 1 ডায়বেটিসের সূচনা হয়। এধরনের ডায়বেটিস সাধারণত দেখা দেয় শৈশব কিংবা প্রাপ্তবয়স্কতার সূচনাকালে এবং প্রায় সবক্ষেত্রেই ইনসুলিনের মাধ্যমে চিকিৎসা নিতে হয়।

টাইপ 2 ডায়বেটিস দেখা দেয় জন্য অগ্নাশয় শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ইনসুলিন উৎপাদন করে কুলিয়ে উঠতে পারে না। এটি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুটিয়ে যাওয়ার সাথে জড়িত এবং মধ্য বয়স কিংবা বৃদ্ধ বয়সে দেখা দেয।

টাইপ 3c ডায়বেটিস দেখা দেয় প্রদাহের মাধ্যমে অগ্নাশয় ক্ষতিগ্রস্থ হলে; টিউমারের মাধ্যমে কিংবা অগ্নাশয়ে অস্ত্রোপচার হলে। এই ধরনের ডায়বেটিস অগ্নায়শের ইনসুলিন উৎপাদনের ক্ষমতাই শুধু ধ্বংসই করে না বরং খাবার হজম করার জন্য অত্যাবশ্যকীয় কিছু প্রোটিন উৎপাদনও বন্ধ করে দেয়। সেই সাথে কিছু হরমোনের উৎপাদনও ব্যহত হয়।

টাইপ 3c অন্য ডায়বেটিসের তুলনায় বেশী ক্ষতিকর হলেও এতদিন এটিকে টাইপ 2 হিসেবেই চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কেবলমাত্র তিন শতাংশ রোগীর ক্ষেত্রে এটিকে পৃথকভাবে সনাক্ত করা হয়েছে।

বিভিন্ন বিশেষায়িত গবেষণাগারের গবেষণায় দেখা গেছে টাইপ 3c ডায়বেটিস আক্রান্ত রোগীদের অন্যান্য রোগীর মতোই ইনসুলিন দেওয়ার প্রয়োজন হয় এবং সেই সাথে দিতে হয় হজমে সহায়ক এনজাইম যা খাবারের সাথে ট্যাবলেট আকারে গ্রহন করা যায়।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং গবেষকগণ সম্প্রতি লক্ষ্য করেছেন টাইপ 3c ডায়বেটিস যতটা না ধারনা করা হয়েছে তার চেয়ে অনেক বেশী বিস্তৃত এবং অনেক ডায়বেটিস রোগীর ক্ষেত্রে এটি সনাক্ত করা হয়নি ভুল হওয়ার কারণে। [sciencealert অবলম্বনে]

-বিজ্ঞান পত্রিকা ডেস্ক