চোখে কন্ট্যাক্ট লেন্সের নানাবিধ অপকারিতার কথা আমরা শুনেছি। এগুলো চোখের নানাবিধ ইনফেকশনের জন্য দায়ী। একারণে ব্যবহার শেষে খুব দ্রুত এই লেন্স চোখ থেকে সরিয়ে রাখতে হয়। কিন্তু সম্প্রতি একটি অভিনব ব্যাপার ঘটেছে। ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালের তথ্য অনুযায়ী একজন নারীর একটি চোখ থেকে ডাক্তারগণ ২৭ টি লেন্স অপসারণ করেছেন!

৬৭ বছর বয়সী নারী চোখে ছানি পড়ার ত্রুটি সারানোর জন্য ডাক্তারের স্মরনাপন্ন হন। অপারেশনের আগে চোখ পরীক্ষার সময় একজন প্রশিক্ষনার্থী সার্জন চোখের মাধ্যে নীলাভ কিছু বস্তুর উপস্থিতি লক্ষ্য করেন। যেগুলোকে পররর্তীতে ১৭ টি কন্ট্যাক্ট লেন্স হিসেবে পাওয়া যায়। প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার পর ডাক্তারগণ একই চোখ থেকে আরো ১০ টি লেন্স বের করেন।

ডাক্তারের পাওয়া নীলাভ বহিরাগত বস্তু। যেটি ছিলো আসলে মিউকাসের মাধ্যমে যুক্ত ১৭ টি লেন্স।

বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষণার্থী রূপাল মরজারিয়া এই প্রসঙ্গে বলেন, “আমরা কেউই এধরনের কিছু আগে দেখিনি। এটা বিশাল এক বস্তু ছিলো। ১৭ টি লেন্সের সবগুলো একসাথে যুক্ত হয়ে ছিলো। আমরা বিস্মিত হয়েছিলাম যখন শুনি রোগী এগুলো চোখে টের পান নি। কেননা, এই জিনিস চোখে যথেষ্ট পরিমান যন্ত্রনা তৈরি করার কথা।”

এই ঘটনাটি ঘটেছে মধ্য ইংল্যান্ডের সলিহাল হাসপাতালে। এতগুলো কন্ট্যাক্ট লেন্স আঁটকে থাকায় তীব্র ব্যাথা অনুভুত হওয়ার বদলে রোগী পেশ করেন, তিনি ভেবেছেন এই চোখ ফোলা ভাব তৈরি হয়েছে তাঁর বয়স এবং চোখ শুকনো থাকার কারণে।

চোখের ছানি অপারেশন হওয়ার পূর্বে এই নারী কোনো সমস্যার কথা বলতে পারেন নি। কেবল, ডানচোখে দেখতে সমস্যা হওয়ার কথা বলেছেন। কেবল ছানি অপারেশনের আগে পরীক্ষাতেই এই লেন্সগুলো পরস্পর সংলগ্ন অবস্থায় ধরা পড়ে। ধারনা করা হচ্ছে এই রোগী ৩৫ বছর ধরে মাসিক কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করেছেন এবং এর মধ্যে কোনো চক্ষু বিশেষজ্ঞের স্মরনাপন্ন হন নি। [iflscience.com অবলম্বনে]

-বিজ্ঞান পত্রিকা ডেস্ক