কাপড় এর কায়িক গতিবিধি কে কাজে লাগিয়ে তড়িৎশক্তি উৎপাদনের পদ্ধতিটি বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই চলে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে এরই ধারাবাহিকতায় Georgia Institute of Technology, এই পদ্ধতির পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে এমন একটি কাপড় প্রস্তুত করেছে যা একই সাথে সৌরশক্তি ও গতিশক্তিকে কাজে লাগিয়ে নিরবচ্ছিন্ন তড়িৎ শক্তি উৎপাদনে সক্ষম। এই দ্বৈতচরিত্র সমন্বিত কাপড় দ্বারা এমন পোশাক তৈরী করা যাবে যা থেকে সঙ্গে থাকা স্মার্টফোন বা জিপিএস ডিভাইসটিকে চার্জ করা যাবে সহজেই।

প্রতিষ্ঠানটির ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিংএর এর প্রফেসর ঝং লিং ওয়াং বলেন, ‘Hybrid Power Textile’ এর মাধ্যমে রৌদ্রোজ্জ্বল দিনে সৌরশক্তি কে কাজে লাগিয়ে এবং সূর্যের অনুপস্থিতিতে বাতাসের গতিকে কাজে লাগিয়ে তড়িৎ আধান উৎপাদন করা যাবে।’

এই কাপড়টি তৈরীতে Wang এর গবেষক দলটি বাণিজ্যিক টেক্সটাইল মেশিন ব্যবহার করে, যেখানে হালকা ওজন বিশিষ্ট পলিমার এর তৈরী সৌরতন্তু (Solar cell fiber) এবং ‘Fiber-based Triboelectric Nano-generator’ কে একসংগে বয়ন করা হয়। Triboelectric (ট্রাইবোইলেক্ট্রিক) বলতে ২টি অপরবাহী বস্তুর ঘর্ষণে উৎপাদিত তড়িৎ বোঝানো হয়। Triboelectric Nano-generator এ ঘর্ষণ-তড়িৎ প্রভাব (Triboelectric effect) এবং স্থির-তাড়িৎ আবেশ (Electrostatic Induction) ব্যবহার করা হয় যা যান্ত্রিক গতি (যেমন ঘূর্ণন, ঘর্ষণ, কম্পন) থেকে তড়িৎ শক্তি উৎপাদন করে। যখন নির্দিষ্ট কোনো বস্তু অন্য বস্তুর সাথে ঘর্ষণের ফলে আধানযুক্ত হয়, Triboelectric Nano-generator টি সেই আধান ধারণ করে।

Solar cell fiber অংশে ব্যবহার করা হয় ‘Photoanode’, যা সুতা-সদৃশ। ফলে সহজেই কাপড়-এর সুতার সাথে বয়ন করা যায়।

ওয়াং এর ইচ্ছা যে ৩২০ মাইক্রোমিটার পুরত্বের এই ফেব্রিক কে পশমের (Wool) সুতার সাথে বয়ন করে তাঁবু, পর্দা এবং পরিধেয় পোষাকে ব্যবহার করবেন। ফেব্রিক টি খুবই নমনীয়, শ্বাসপ্রশ্বাসের বাধা সৃষ্টি করে না, ওজনে হালকা এবং সহজেই পরিধেয়। ফেব্রিক টি তৈরীতে ব্যবহৃত পলিমার এবং ইলেক্ট্রোড- ২টাই সস্তা এবং পরিবেশবান্ধব হওয়ায় সহজেই বাণিজ্যিকভাবে এর উৎপাদন সম্ভব।

পরীক্ষামূলক পর্যবেক্ষণের অংশ হিসেবে Wang এর গবেষক দলটি অফিস পেপার আকারের একখন্ড কাপড়কে চলন্ত গাড়িতে পতাকার মত ঝুলিয়ে উড়তে দেন, এবং তাঁরা দেখেন ৪ × ৫ সেমি. কাপড় থেকে একমিনিটে ২ মিলিফ্যারাড বাণিজ্যিক ক্যাপাসিটরকে ২ ভোল্ট চার্জ দেয়া সম্ভব হয়।

গবেষক দলটির পরবর্তী গবেষণার মধ্যে আছে আর্দ্রতা ও বৃষ্টির পানি কে কাজে লাগিয়ে আধান উৎপাদন করা নিয়ে। [Science Daily অবলম্বনে]

-স্বরাজ মল্লিক,
বস্ত্রকৌশল বিভাগে অধ্যয়নরত,
খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়