মহাবিশ্বের প্রথম অণুটি সনাক্ত

0
202

১৩.৩ বিলিয়ন বছর আগে যখন মহাবিশ্বের উদ্ভব ঘটেছিল তার পরপরই রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে প্রথম অণুটির সৃষ্টি হয়েছিল। এই প্রাথমিক অণুগুলোর সনাক্তকরণ আমাদের সার্বিক জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু এই অণুগুলোকে এতদিন কোনো ভাবেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না।

দীর্ঘদিন যাবৎ বিজ্ঞানীরা HeH+ (হিলিয়াম হাইড্রাইড আয়ন)-কে প্রথম অণু হিসেবে প্রস্তাব করে আসছেন যদিও মহাবিশ্বে এদের প্রকৃত উপস্থিতি সনাক্ত করা যায়নি। তবে অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে সম্প্রতি এই অণুগুলোকে খুঁজে পাওয়া গেছে এবং নেচার জার্নালে এ সংক্রান্ত গবেষণাপত্র প্রকাশ করা হয়েছে।

বিগব্যাংএর পরমূহুর্তে হিলিয়াম পরমানুর সাথে ধনাত্মক হাইড্রোজেন আয়ন তথা প্রোটনের আণবিক বন্ধনের মাধ্যমে HeH+ গঠিত হয়। পরবর্তীতে এই অণুগুলো ভেঙ্গে গিয়ে হাইড্রোজেন অণু এবং হিলিয়াম পরমাণুতে পরিণত হয়। সমগ্র মহাবিশ্বে এই দুটি মৌলিক পদার্থ সবচেয়ে সহজলভ্য যার মধ্যে হাইড্রোজেন প্রথম স্থান অধিকার করে আছে আর হিলিয়াম দ্বিতীয়।

১৯২৫ সালে প্রথমবারের মত গবেষণাগারে এই আণবিক আয়নটি তৈরি করা হয়েছিল- যা থেকে মহাবিশ্বে এই আয়নটির প্রথম অণু হিসেবে আবির্ভাবের ধারনা তৈরি হয়। এর পরে দশকের পর দশক ধরে হন্যে হয়ে খুঁজেও এই আয়নটিকে পাওয়া যায়নি। বর্তমান গবেষণাটির গবেষক এবং ম্যাক্স প্ল্যাংক ইনস্টিটিউট ফর রেডিও এস্ট্রোনমির জ্যোতির্বিদ রলফ গুস্টেন এক বিবৃতিতে বলেন, “মহাবিশ্বের রসায়নের সূচনা হয়েছিলো HeH+ আয়নটির হাত ধরে। এই আয়নটির সুনির্দিষ্ট উপস্থিতি খুঁজে না পাওয়া দীর্ঘদিন যাবৎ জ্যোতির্বিদদের জন্য সংকট তৈরি করে রেখেছিল।”

১৯৭০ এর দশকের জ্যোতিঃমডেলগুলো এই অণুটিকে সনাক্তকরার কিছু সম্ভাব্য উপায় বাতলে দেয়। সেই মডেলসমূহ হতেই বিজ্ঞানীদের ধারনা হয় নক্ষত্রের সুপার নোভার বিস্ফোরণের সময় আমাদের সূর্যের মত তারকাগুলো যেই বিসৃঙ্খল প্ল্যানেটারি নেবুলা ছড়িয়ে দেয় সেখানে সম্ভবত এই আয়নের অস্তিত্ব থাকতে পারে। এই আণবিক আয়নটি তৈরি হতে পারে যখন নক্ষত্রের বিকিরণ একলক্ষ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় পৌঁছায় এবং নেবুলা আয়নিত হয়। কিন্তু সবচেয়ে শক্তিশালী তরঙ্গদৈর্ঘ্যের বিকিরণেও এই অণুটির সংকেত সনাক্তকরণ দুঃসাধ্য প্রতীয়মান হয়েছে এবং আমাদের পৃথিবীর অস্বচ্ছ বায়ুমন্ডলের উপস্থিতি ভূ-পৃষ্ঠে স্থাপিত যে কোনো টেলিস্কোপের মাধ্যমে এই ধরনের তরঙ্গের সনাক্তকরণ অসম্ভব করে তোলে।

তাই গবেষকগণ Sofia (Stratospheric Observatory of Infrared Astronomy) নামের বোয়িং জেটের উপর স্থাপিত একটি টেলিস্কোপকে এই কাজে নিয়োজিত করেন। এই বিমানটি আমাদের বায়ুমন্ডলের সর্বনিন্মঃস্থ স্তরের উপর দিয়ে উড়তে পারে। সোফিয়াতে GREAT নামে তরঙ্গ সনাক্ত করার জন্য এই উচ্চ রেজুলেশনের বর্ণালীবীক্ষণ যন্ত্র রয়েছে। এর মাধ্যমে প্ল্যানেটারি নেবুলা NGC 7027 হতে HeH+ অণুটির বর্ণালী সনাক্ত করা হয়। (cnn.com অবলম্বনে)

-বিজ্ঞান পত্রিকা ডেস্ক

মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.