আমাদের সৌরজগতের সমসংখ্যক গ্রহ নিয়ে আরেকটি গ্রহ-ব্যবস্থা আবিষ্কৃত

0

গুগলের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তি এবং নাসার যৌথ উদ্যোগে নতুন একটি গ্রহ-ব্যবস্থা আবিষ্কৃত হয়েছে যাতে আমাদের সৌরজগতের সমসংখ্যক গ্রহই রয়েছে। একই গ্রহ-ব্যবস্থায় আবিষ্কৃত এই গ্রহ সংখ্যাই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

এই ব্যবস্থাটির নাম কেপলার-৯০। এটি সুর্যসদৃশ একটি নক্ষত্র যা ২,৫৪৫ পৃথিবী হতে আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। আমরা ইতিপূর্বেই এই নক্ষত্র-ব্যবস্থার সাতটি গ্রহ সম্বন্ধে জানতাম। তবে নতুন প্রযুক্তির কল্যাণে অষ্টম একটি গ্রহ সম্প্রতি আবিষ্কৃত হয়। এই আবিষ্কার নিয়ে The Astrophysical Journal এ গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে।

অস্টিনে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের বিজ্ঞানী এন্ড্রু ভ্যান্ডারবার্গ বলেন, “কেপলার-৬০ নক্ষত্র-ব্যবস্থা আমাদের সৌরজগতের একটি ক্ষুদ্র সংস্করণের মতো। এতে আমাদের সৌরজগতের মতোই ছোট গ্রহগুলো ভেতরের দিকে আর বড় গ্রহগুলো বাইরের দিকে রয়েছে, তবে এদের অবস্থান অপেক্ষাকৃত কাছাকাছি।”

কেপলারের গবেষনাব্যবস্থার মাধ্যমে ২০০৯ সাল হতে গ্রহ খুঁজে বেড়ানো হচ্ছে এবং এই যাবৎ সহস্রাধিক গ্রহ আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে এর সংগৃহীত তথ্যের মধ্যে অনেক অজানা কিছু আছে যার অর্থ আমরা এখনো বুজতে পারি নি।

আমাদের সৌরজগত ও কেপলার-৬০ নক্ষত্র ব্যবস্থার তুলনা

তবে নতুন এই পদ্ধতির মাধ্যমে আমরা আগের চেয়ে সুচারুভাবে তথ্য বিশ্লেষণ করতে পারি। কোন নক্ষত্রের সামনে দিয়ে তার গ্রহটি অতিক্রম করে গেলে আলোর যে সামান্য হ্রাস ঘটে তার পরিমাপের মাধ্যমেই কেপলার একটি গ্রহ সনাক্ত করে। এই পদ্ধতির নাম ট্রানজিট পদ্ধতি।

তবে কখনো কখনো এই পদ্ধতিতে বোঝা যায় না সংকেত গ্রহ হতে আসছে নাকি অন্য কারণে। এই সংকেত কখনো দুর্বল হয় এবং গ্রহ নির্দেশ না করে ছোট অনুজ্জ্বল নক্ষত্রও বোঝাতে পারে, ফলে গ্রহ নিশ্চিত করা দুঃষ্কর হয়ে পড়ে। গুগলের একটি নিউরন ব্যবহার করে নাসা এখন আরো নির্ভরযোগ্যভাবে তথ্য বিশ্লেষণ করতে পারে।

Share.

মন্তব্য করুন