Top header

দৈবক্রমে CO2 কে জ্বালানীতে পরিণত করার অবিষ্মরনীয় সাফল্য

1

টেনেসিতে বিজ্ঞানীদের দল অনেকটা দুর্ঘটনাবশতঃই কার্বন ডাইঅক্সাইডকে (CO2) ইথানলে রূপান্তরিত করেছেন।

ওক রিজ ন্যাশনাল ল্যাবরেটরীর ডিপার্টমেন্ট অব এনার্জিতে কর্মরত গবেষকগণ CO2 এর মধ্যে কার্বন ও তামার ‘ন্যানো কাঁটা’ জাতীয় বস্তু যুক্ত করে একে ইথানলজাতীয় অ্যালকোহলে পরিণত করেন। এই অ্যালকোহল পানীয় ইত্যাদিতে ব্যবহৃত হয়।

ইথানল জ্বালানীর উপাদান হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। ব্রাজিলে ব্যবহৃত জ্বালানী তেলের ২৫ শতাংশই হচ্ছে ইথানল- যে কারণে বিজ্ঞানীরা এই আবিস্কারকে “আবর্জনা থেকে জ্বালানীর প্রযুক্তিতে নতুন দিগন্ত” হিসেবে দেখছেন।

এই গবেষনার নেতৃত্বদানকারী এডাম রনডিনোন এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, “আমরা দুর্ঘটনাবশতঃ খুঁজে পেয়েছি যে এই পদ্ধতি কাজ করে। আমরা একটি বিক্রিয়ার প্রথম ধাপটি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে দেখতে পেয়েছি যে এই প্রভাবক সমগ্র বিক্রিয়াটি সংঘটনেই সাহায্য করে।”

এই গবেষকদলটি মূলতঃ কিভাবে CO2 ইথানলে রূপান্তর করা যায় তার একটি অপেক্ষাকৃত দীর্ঘ পদ্ধতি নিয়ে গবেষণা করছিলেন। তাঁরা শুরুতে ধারনা করেছিলেন এই প্রক্রিয়াটি কয়েকধাপে সম্পন্ন করতে হবে এবং একটি জটিলাকার রাসায়নিক বিক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। কিন্তু এই দৈব আবিষ্কার থেকে বোঝা গেলে প্রক্রিয়াটি আসলে অনেক সরলতর উপায়েই ঘটানো সম্ভব।

এই আবিষ্কার একটি বিরাট অর্জন, কেননা, এর কাঁচামাল হচ্ছে একটি বড় বায়ু দূষনকারী বস্তু CO2। এটি জলবায়ু পরিবর্তনের মূল কারণ। যদি এই নতুন পদ্ধতিটি সাশ্রয়ী হয় এবং সর্বত্র প্রতিষ্ঠা করা যায় তাহলে এটি হবে জীবাশ্ম জ্বালানী পুড়িয়ে শক্তি উৎপাদনের বিকল্প, যেই পদ্ধতিতে প্রচুর পরিমানে CO2 উৎপাদিত হয়।

তবে এটি গবেষনাগারের গন্ডি পেরিয়ে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করা সম্ভব হবে কিনা সেই ব্যপারে এখনো নিশ্চয়তা দেওয়া যাচ্ছে না।

– বিজ্ঞান পত্রিকা ডেস্ক

Share.

1 Comment

মন্তব্য করুন