Top header

মায়া সভ্যতার সবচেয়ে বড় রাজকীয় সমাধি আবিষ্কার

0

মধ্য আমেরিকার পূর্ব উপকূল বেলিজে কর্মরত প্রত্নতাত্ত্বিকদের একটি আন্তর্জাতিক দল মায়া সমাধির উদঘাটন করেছেন। এটা এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত সবচেয়ে বৃহৎ রাজকীয় সমাধি। এর মাঝে একটি পুরুষ দেহাবশেষ, পশুর হাড়, কাচের মতো দেখতে একজাতীয় আগ্নেয় শিলার কিছু ফলক এবং চিত্রলিপিতে বর্ণমালা সংক্রান্ত ফলক পাওয়া গেছে যা পৌরাণিক ‘সর্প রাজবংশ’ সম্পর্কে নতুন ভাবনার সৃষ্টি করেছে।

মায়া সভ্যতার অন্তর্গত মানুষেরা মেক্সিকোর দক্ষিণে এবং উত্তর-মধ্য আমেরিকাতে বসবাস করতো। এটি ছিলো বিশ্বের সর্বাপেক্ষা ঘন জনবসতিপূর্ণ এবং সংস্কৃতিভাবে গতিশীল একটি সমাজ। পশ্চিম বেলিজের একটি প্রাচীন শহর যুনানটুনিখ-এ (Xunantunich) একটি মন্দিরের সিঁড়ির তলদেশে উদঘাটিত হয় সমাধিটি যা একসময় মায়াদের আচার-অনুষ্ঠানের জন্য ব্যবহৃত হত।

উত্তর অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলের প্রধান যেইমি এওই গার্ডিয়ান পত্রিকাকে বলেন, “অন্যভাবে বলতে গেলে প্রাথমিকভাবে দেখে বুঝা যাচ্ছে সমাধিটি আবৃত করে রাখার জন্যই মন্দিরটি ইচ্ছাকৃতভাবে তৈরী করা হয়েছে। কয়েকটি বিরল ক্ষেত্র ছাড়া এটি বিশেষ কোন মায়া স্থাপত্য নয়।”

তাঁদের মতে, সমাধিটি ২০-৩০ বছর বয়সী কোন পেশীবহুল মানুষের জন্য তৈরী করা হয়েছিল যিনি তখন অনেক গুরুত্ব বহন করতেন।

গবেষক দলটি একটি দেহাবশেষ ছাড়াও একটি জাগুয়ারের হাড়, একটি হরিণ, জপমালার মতো একটি নেকলেস, ১৩ টি একজাতীয় আগ্নেয় শিলার ফলকসহ ৩০ টি সিরামিকের পাত্রের সন্ধান পান। সমাধির অন্য প্রান্তে দুটি গুদামের মতো জায়গায় ৯টি আগ্নেয় শিলার ফলক ও ২৮টি চকমকে পাথরের মূর্তি পাওয়া যায়, যার গায়ে বিভিন্ন পশু ও প্রতীকের খোদাইকৃত চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে।

কোন সমাধি খুঁজে পাওয়া প্রত্যেক প্রত্নতাত্ত্বিকদের নিকটই রোমাঞ্চকর হয় আর এটা ছিল তার মাঝে অন্যতম। কারণ বেলিজে খুঁজে পাওয়া সমাধিগুলোর মাঝে এটাই ছিল সবচেয়ে বড়। এর দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ্য যথাক্রমে ৪.৫ মিটার (১৪.৭ ফুট) এবং ২.৪ মিটার (৭.৯ ফুট)।

এওই আরও বলেন, “১৮৯০ সাল থেকে যুনানটুনিখ এর এই স্থানটিতে প্রত্নতাত্ত্বিকগণ অনুসন্ধান চালিয়ে আসছেন এবং পূর্বে এরকম কোন সমাধির সন্ধান মেলেনি। আর এবারই প্রথমবারের মতো এত বিশাল আকৃতির মৃতদেহ সম্বলিত সমাধির সন্ধান দলের সকলকেই রোঞ্চিত করেছে।”

সমাধি থেকে প্রাপ্ত হায়ারোগ্লিফিক্স চিত্রলিপি সম্বলিত ফলক তথাকথিত ‘সর্প রাজবংশ’ সম্পর্কে ধারণা দেয়, যে পরিবার ১,৩০০ বছর আগে মায়া সম্রাজ্য শাসন করতো এবং তাদের প্রতীক হিসেবে সাপের মাথার চিহ্ন ব্যবহার করতো।

অনুসন্ধান দলের সূত্র-লিপি উদঘাটক (epigrapher) ক্রিষ্টোফ হেমকি বলেন, “এই ফলকটিতে সমাধি থেকে ৪১ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত প্রাচীন শহর কারাকোলের শাসক দ্বিতীয় কা’ন সম্পর্কে কিছু তথ্য লিখিত রয়েছে।

কিন্তু আশ্চর্যের ব্যাপার এই যে, চিত্রলিপি থেকে সর্প বাজবংশের উজাকালিজু উব্বা কা’ন নামে আরও একজন রাজার কিছু তথ্য উদ্ধঘাটন করা হয়েছে। যিনি সম্ভবতঃ ৬৩৫ খ্রিষ্টাব্দের দিকে শাসন কার্য পরিচালনা করেছেন। এই দুজন যথাসম্ভব দুই ভাই হয়ে থাকবেন এবং দুজনই রাজা ছিলেন। সিংহাসনের জন্য তাঁরা কুস্তিও লরেছিলেন।

হেমকি বলেন, “এর মানে সিংহাসনের জন্য দুজন প্রতিযোগী ছিলেন, উভয়ে একই রাজবংশের উপাধি বহন করতেন। কাউয়া’ন আজাও পড়ার পর সেটাই ধারণা করা হচ্ছে।”

এই ফলকের সাহায্যে গবেষকগণ সর্প রাজবংশ সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য উদঘাটনের আশা প্রকাশ করেছেন। এই সকল তথ্যগুলো এক জায়গায় করে সমগ্র মায়া রাজ পরিবারের ইতিহাস এবং পতনের কারণগুলোর উপর বিস্তারিতভাবে আলোকপাত করতে সক্ষম হবেন।

শফিকুল ইসলাম

Share.

মন্তব্য করুন